সংস্করণ: ২.০১

স্বত্ত্ব ২০১৪ - ২০১৭ কালার টকিঙ লিমিটেড

fan.jpg

মুভি রিভিউ ভিন্ন রকমের বলিউডি সিনেমা; ফ্যান

আরিয়ান খান্না যে হোটেল এ, এমনকি যে রুমে থেকেছিল, সেও সেই রুমেই থাকতে আসে। আরিয়ান খান্নার সঙ্গে দেখা করার স্বপ্নপূরণের আগের মুহূর্ত পর্যন্ত সবকিছু ঠিকই ছিল।

বলিউডের সিনেমা মানেই নাচ, গান, রোমান্স, মারপিট, আইটেম গানে ভরপুর মসালাদার চলচ্চিত্র। কিন্তু এসব কিছু থেকে ভিন্ন রকমের সিনেমা হল সম্প্রতি মুক্তি পাওয়া বলিউড সুপারস্টার কিং খান শাহরুখ খানের বহুল প্রতিক্ষিত সিনেমা "ফ্যান"।

সিনেমার কাহিনীঃ  সিনেমার শুরুতেই দেখা যায় গৌরব নামে একজন আরিয়ান খান্না নামের সুপারস্টারের পাগল ভক্ত। যে আরিয়ান খান্নার কোন সিনেমা দেখা মিস করেনা, আরিয়ান খান্নার সব পোস্টার তার ঘরে লাগানো আছে। দেখতেও সে অনেকটা আরিয়ান খান্নার মত।  

সে নিজেকে জুনিয়র আরিয়ান খান্না মনে করে। তার পরিবার ও মহল্লাবাসিও তার এই আরিয়ান খান্না প্রেম এর কথা জানে। রীতিমতো পুজো করে সুপারস্টার আরিয়ানকে। তাঁকে একঝলক চোখের দেখা দেখতে ও জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানাতে সে ঠিক করে মুম্বাই আসবে।

মুম্বাই আসার সময় আরিয়ান খান্না যেভাবে ট্রেনে চড়ে এসেছিল, সেও সেভাবেই আসে। আরিয়ান খান্না যে হোটেল এ, এমনকি যে রুমে থেকেছিল, সেও সেই রুমেই থাকতে আসে। আরিয়ান খান্নার সঙ্গে দেখা করার স্বপ্নপূরণের আগের মুহূর্ত পর্যন্ত সবকিছু ঠিকই ছিল। তবে মুম্বাই আসার পর আরিয়ান খান্নার সঙ্গে গৌরব দেখা করতে চেয়েও পারেনি। 

এরপরই স্বপ্ন ও মোহ দুটোই ভঙ্গ হয় গৌরবের। এরপর থেকেই সিনেমা অন্যদিকে মোড় নেয়। সবচেয়ে বড় ভক্তই হয়ে যায় সবচেয়ে বড় শত্রু। এভাবেই এগিয়ে যায় বাকী সিনেমার কাহিনি। যার শেষ হয় ফ্যান গৌরব এর মৃত্যুর মধ্য দিয়ে।

সিনেমার যা ভালো দিকঃ  

  • ভিন্ন রকমের গল্প।
  • অভিনয়ের দিক থেকে বলতে গেলে সিনেমা জুড়ে শুধুই শাহরুখ খানই রয়েছেন। সুপারস্টার হিসাবে তিনি যতোটা মন কেড়েছেন, তার চেয়ে ঢের বেশি তিনি হাততালি কুড়িয়েছেন আমজনতার প্রতিনিধি গৌরবের চরিত্রে।
  • অসাধারণ লোকেশন।
  • আইটেম গানের বাহার নেই।
  • নায়িকা নেই।
  • কাহিনীর গতি হারায়নি।
  • সংলাপ গুলো ভালো ছিল।
  • এডিটিংও ভালো ছিল।

সিনেমার যা মন্দ দিকঃ
  • ভক্ত ও সুপারস্টারের অবয়ব প্রায় মিল, যা কখনো সম্ভব নয়।
  • নামের সাথে গল্পের মিল কতটুকু আছে, তা নিয়ে বিতর্ক থাকতে পারে।
  • একজন পাড়া মহল্লার ছেলে হয়ে একজন সুপারস্টারের সাথে পাল্লা দিবে, যা আজগুবি লেগেছে।
  • ভক্ত আরিয়ান খান্নার জন্য এতকিছু করল শুধুমাত্র একটা সরি বলার জন্য, কিন্তু ছবির শেষ পর্যন্তও আরিয়ান খান্নাকে সরি বলতে দেখা যায়নি।
দিল্লির যুবক গৌরবের চরিত্রে অভিনয়ের সময়ে একেবারে খাঁটি দিল্লিবাসীর মতো উচ্চারণ উঠে এসেছে শাহরুখের ঠোঁটে।

তাঁকে দেখতে, মুখের ভাষা ও শরীরী ভাষাও একেবারে দিল্লিবাসীর মতো করে ফুটিয়ে তুলেছেন বলিউড সুপারস্টার। ফলে শাহরুখ খানের ভক্ত হোন বা না হোন, ভালো সিনেমা দেখতে হলে এই সিনেমাটি আপনাকে দেখতেই হবে।

এখানে প্রকাশিত প্রতিটি লেখার স্বত্ত্ব ও দায় লেখক কর্তৃক সংরক্ষিত। আমাদের সম্পাদনা পরিষদ প্রতিনিয়ত চেষ্টা করে এখানে যেন নির্ভুল, মৌলিক এবং গ্রহণযোগ্য বিষয়াদি প্রকাশিত হয়। তারপরও সার্বিক চর্চার উন্নয়নে আপনাদের সহযোগীতা একান্ত কাম্য। যদি কোনো নকল লেখা দেখে থাকেন অথবা কোনো বিষয় আপনার কাছে অগ্রহণযোগ্য মনে হয়ে থাকে, অনুগ্রহ করে আমাদের কাছে বিস্তারিত লিখুন।

ফ্যান, শাহরুখ-খান, সিনেমা, বলিউড