সংস্করণ: ২.০১

স্বত্ত্ব ২০১৪ - ২০১৭ কালার টকিঙ লিমিটেড

Portrait_of_Rabindranath_Tagore_photographed_during_Bengali_Wikipedia_10th_Anniversary_Celebration_Jadavpur_University_Campus5887.jpg

রবীন্দ্র পরিচিতি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ও আজকের শিশুরা

এখানে শিশুদের কথা বলা হলো এই জন্য যে, আমরা বড়রাই যেখানে রবীন্দ্রনাথ সম্পর্কে অনেক কম জানি সেখানে শিশুরা তো তাঁর সম্পর্কে জানাবে এ কথা বলা যায় না।

আমরা যদি কোন শিশুকে বলি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ছিলেন অনেক বড় মানুষ। একথা বলার সাথে সাথে যে কোন শিশু কি বুঝতে পারবে তিনি কত বড়? আর এই বড়টা পরিমাপের কি কোন ধরন আছে?

হ্যাঁ শিশুদের ব্যপারটা বুঝাতে হলে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ছিলেন অনেক বড় মানুষ একথা বলার পাশাপাশি সেই শিশুকে রবী ঠাকুরের কর্মের সাথে পরিচয় ঘটাতে হবে। তা নাহলে শিশুরা কবির বড় ব্যপারটা উপলব্ধি করতে পারবে না। এ ক্ষেত্রে আমরা একটি কাজ করতে পারি, তা হলো শিশুদের কোন লাইব্রেরীতে নিয়ে রবীন্দ্রনাথের রচনা সমগ্র দেখাতে পারি।

আরও বলতে হবে এখানে যতগুলো বই আছে তা ছাপা হয়েছে খুব ছোট ছোট ফন্ট ব্যবহার করে। এখানে যদি তোমাদের বই এর মত বড় ফন্ট ব্যবহার করা হতো তো বই আরও দুই গুন বেড়ে যেত। আমরা আরও বলতে পারি এই যে, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ছিলেন অনেক বড় মানুষ এটা বুঝা যাবে আরও একটি ব্যপার থেকে। তা হলো পৃথিবীর অনেক দেশ তাঁর মুখাকৃতি দিয়ে ডাক টিকেট ছাপিয়েছেন।

যে দেশ গুলো তাঁর মুখাকৃতি দিয়ে ডাক টিকেট ছাপিয়েছেন তার মধ্যে বাংলাদেশ, ভারত, বুলেগরিয়া, ইয়েমেন, ব্রাজিল, আর্জেন্টিনা, ভেনেজুয়েলা, রোমানিয়া, রাশিয়া, সুইডেন, ভিয়েতনাম উল্লেখ যোগ্য। এছাড়াও আফ্রিকান সাগরের একটি আগ্নেয়দ্বীপ কোমোরো আইল্যান্ড থেকে ১৯৭৭ সালে পৃথিবীর সব ডাকসাইটেদের নিয়ে একটি ডাকটিকেট প্রকাশ করেছিল।

আর এই ডাকসাইটেদের একজন হলেন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর। আমারা আরও যে তথ্য গুলো তুলে ধরতে পারি তার মধ্যে  রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের নামে বিভিন্ন রাস্তার নামকরণ করা, তার অবাক্ষ মূর্তি বানিয়েছেন আধুনিক শিল্পকলার মহিরুহদের একজন স্যার জেকব এপস্টাইন, তাঁর কবিতা ইরেজিতে অনুবাদ করেছেন পৃথিবী বিখ্যাত আইরিশ কবি ডব্লিউ বি ইয়েটস, ফরাশি কবি আঁদ্রে জিদ ও সাঁ জঁ পার্স, স্প্যনিস কবি হুয়ান রামোন, হিমেনেথ কিংবা রুশ কবি ও কথা সাহিত্যিক বরি পাস্তেরনাক।

এখানে শিশুদের কথা বলা হলো এই জন্য যে, আমরা বড়রাই যেখানে রবীন্দ্রনাথ সম্পর্কে অনেক কম জানি সেখানে শিশুরা তো তাঁর সম্পর্কে জানাবে এ কথা বলা যায় না। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের শিশুতোষ লিখা অসামান্য। আমার দেখি যে ছড়া বা কবিতার ভান্ডার বেশ যায়গা করে নিয়েছে।

যেমন: স্বরবর্ণের ছড়া, ব্যাঞ্জনবর্ণের ছড়া, বিচিত্র সাধ, লিখেছিনু ঢের বেশি, কাল ছিল, ঘাসে আছে ভিটামিন, মোতিবিলি, ঠাকুরদাদার ছুটি, রাঁধিয়ে, ভয় ইত্যাদি ছড়া গুলো শিশুদের জন্য বেশ সহজ ও সাবলীল।

রবীন্দ্রনাথ ঠকুরের গান যদি আমরা দেখি তো সেখানেও শিশুদের জন্য আছে অনন্য ভান্ডার, যেমন মেঘের কোলে রোদ হেসেছে, হারে রে রে রে রে, আমরা সবাই রাজা, আমাদের ক্ষেপিয়ে বেড়ায়, আমাদের ভয় কাহারে, আজ ধানের ক্ষেতে, ও জোনাকি কী সুখে সহ সর্বপোরি আমার সোনার বাংলা জাতীয় সঙ্গীতটি শিশুদের কাছে প্রিয়।

তাঁর ছোট গল্প, নাটকেও আছে অসামান্য অবদান। আমরা রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের কাছে এককথায় বলতে হবে চীর ঋণী। শিশুদের রবীন্দ্রনাথকে ভালোবাসাতে শেখাতে হবে। তবেই আমাদের নতুন প্রজন্ম আলোর দিশা পাবে।
এখানে প্রকাশিত প্রতিটি লেখার স্বত্ত্ব ও দায় লেখক কর্তৃক সংরক্ষিত। আমাদের সম্পাদনা পরিষদ প্রতিনিয়ত চেষ্টা করে এখানে যেন নির্ভুল, মৌলিক এবং গ্রহণযোগ্য বিষয়াদি প্রকাশিত হয়। তারপরও সার্বিক চর্চার উন্নয়নে আপনাদের সহযোগীতা একান্ত কাম্য। যদি কোনো নকল লেখা দেখে থাকেন অথবা কোনো বিষয় আপনার কাছে অগ্রহণযোগ্য মনে হয়ে থাকে, অনুগ্রহ করে আমাদের কাছে বিস্তারিত লিখুন।

রবীন্দ্রনাথ-ঠাকুর, টিকেট, শিশুতোষ-লেখা, শিশু, জানা